‘মিনার ঘটনা তদন্তে আন্তর্জাতিক আদালত চাই’

0
877

IMAGE634312276238281250

ইরানের বিশিষ্ট আলেম ও তেহরানের জুমা নামাজের অস্থায়ী খতিব আয়াতুল্লাহ মুহাম্মাদ ইমামি কাশানি পবিত্র মিনায় গতকালের ঘটনাকে ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে সৌদি সরকারের অযোগ্যতার প্রমাণ বলে অভিহিত করেছেন।
তিনি বলেছেন, বিশ্বসমাজ এ ঘটনার ব্যাপারে সৌদি সরকারের নানা সাফাই বা অজুহাতকামীতাকে মেনে নেবে না, কারণ এসবই মিথ্যা।
আজ তেহরানের জুমা নামাজের খোতবায় তিনি এ বিষয়ে আরও বলেছেন, পবিত্র কুরআনের সুরা নিসার ১০০ নম্বর আয়াতের অন্যতম তাফসির অনুযায়ী, আল্লাহর ঘর তথা কাবা জিয়ারতকারী শহীদরা ‘আল্লাহ ও রাসূলের দিকে হিজরতের ইচ্ছা প্রকাশের পর মৃত্যুবরণকারীর’ মতই মহাপুরস্কার বা প্রতিদান পাবেন মহান আল্লাহর কাছ থেকে।
হজযাত্রীরা বিশৃঙ্খল থাকায় বা তীব্র গরমের কারণে মারা গেছে বলে সৌদি সরকার যেসব দাবি করছে তা নাকচ করে দিয়ে আয়াতুল্লাহ কাশানি বলেন, সৌদি নিরাপত্তা কর্মীদের হাতে সড়ক বন্ধ করে দেয়াটাই গতকাল মিনায় বিপর্যয় ঘটার মূল কারণ। মুসলিম দেশগুলো যাতে মিনায় বিপুল সংখ্যক হজযাত্রীর হতাহত হওয়ার কারণ স্পষ্ট করার জন্য আন্তর্জাতিক আদালতের দ্বারস্থ হতে পারে সেই সুযোগ করে দেয়াও সৌদি সরকারের দায়িত্ব বলে তিনি মন্তব্য করেন।
তিনি হজের দায়িত্ব পালনের ব্যাপারে ইসলামী সহযোগিতা সংস্থা বা ওআইসি’র দ্বারস্থ হওয়ার ওপর জোর দিয়ে বলেছেন, হজ কেবল সৌদি সরকারের সাথে সংশ্লিষ্ট বিষয় নয় এবং মিনায় বহু মুসলিম দেশের মুসলমান শহীদ হয়েছেন।
ওআইসির মাধ্যমে হজ পরিচালনা ও হজের সময় নিরাপত্তা রক্ষার জন্য মুসলিম দেশগুলোর সেনা বাহিনী ব্যবহার এবং এ ব্যাপারে মুসলিম দেশগুলোকে মত প্রকাশ করতে দেয়ার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন আয়াতুল্লাহ কাশানি। তিনি বলেন, সৌদি সরকার মিনার ঘটনার পর অপরাধীর মত কথা না বলে ও জবাবদিহিতার তোয়াক্কা না করেই বরং তার হজ বিষয়ক কর্মীদের ধন্যবাদ দিয়েছে এবং তারা কাজে কোনো অবহেলা করেনি বলে দাবি করেছে।
আয়াতুল্লাহ কাশানি বলেন, সৌদিদের এইসব বলদর্পী কথা বিশ্বের কাছে গ্রহণযোগ্য নয় এবং ইসলামী সহযোগিতা সংস্থা বা ওআইসিকে এ ব্যাপারে দায়িত্ব গ্রহণ করতে হবে, কারণ সৌদি আরব একটি সরকার মাত্র এবং বর্তমানে এই সরকারের একমাত্র কাজ হল তাকফিরি-ওয়াহাবি সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আইএসআইএল তথা দায়েশকে লালন-পালন করা ও ইয়েমেনের নারী-পুরুষ আর শিশুদের হত্যার পাশাপাশি দেশটির হাসপাতালগুলোকেও ধ্বংস করা।

Share

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY